বন্যা তালুকদার, পাথরঘাটা (বরগুনা) : উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ ঘনীভূত হওয়ায় গভীর সমুদ্রে ঝড়ের কবলে পড়ে বরগুনা জেলার পাথরঘাটার শামসুল হক মাতুববরের মালিকানাধীন এফবি ফাতিমা ট্রলারটি ১১ জন মাঝিমাল্লাসহ দেশের জলসীমা অতিক্রম করে ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে পড়েছে বলে জানা গেছে।

তারা বর্তমানে ভারতীয় পুলিশ হেফাজতে রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী। মঙ্গলবার বেলা তিনটার দিকে তিনি এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ১০ আগষ্ট বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ১১ জন মাঝিমাল্লা নিয়ে উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের তাফালবাড়িয়া এলাকা থেকে বলেশ্বর নদ হয়ে গভীর বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকার করতে যায় এফবি ফাতেমা ট্রলারটি। এর পর থেকে উপকূলের সাথে কোন যোগাযোগ হয়নি তাদের।

জেলেরা হলো (১) ট্রলার মালিক শামসুল হক মাতুব্বর, (২) মোহাম্মদ আলী হোসেন হাওলাদার, (৩) মোহাম্মদ আব্দুল জলিল মিয়া, (৪) নবী হোসেন মীর, (৫) খলিল মীর, (৬) ফারুক মীর, (৭) মোহাম্মদ মুছা, (৮) মোহাম্মদ রুবেল, (৯) হাফিজুর রহমান, (১০) রুস্তুম আলী, (১১) মোহাম্মদ হারুন।

গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান গত পাঁচদিন ধরে ১১ মাঝিমাল্লা সহ ট্রলারটি নিখোঁজ ছিল। এরপর সোমবার রাতে ভারতের চব্বিশ পরগনার ছোট মোল্লাখালির স্থানীয় বাজার থেকে ট্রলারের মালিক শামসুল হক তার স্বজনদের কাছে ফোন দিয়ে তারা সবাই ভারতে আছে বলে জানান।

ট্রলার মালিকের বরাত দিয়ে গোলাম মোস্তফা চৌধুরী আরো জানান, আবহাওয়া খারাপ হওয়ার পর ট্রলারটি ঘাটে ফিরে আসার সময় ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। এরপর ভাসতে ভাসতে ভারতের চব্বিশ পরগনার ছোট মোল্লাখালির একটি চরে আটকে যায়। এ সময় সেখানকার স্থানীয়রা ট্রলারের মাছ, জাল-দড়ি সহ সকল রশদ লুট করে নেয়। এ সময় তাদের মারধরের ঘটনাও ঘটে। পরে সেখান থেকে স্থানীয়রা পাথরঘাটায় স্বজনদের কাছে জেলেদের ছেড়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে জন প্রতি ১২ হাজার টাকা দাবি করে। স্বজনরা সঠিক সময়ে টাকা দিতে না পারায় ১১ মাঝিমাল্লাকে চব্বিশ পরগনার ছোট মোল্লাখালি পুলিশের কোস্টাল স্টেশন সোপর্দ করে।

এ বিষয়ে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আবুল বাশার জানান, পাথরঘাটা থানায় নিখোঁজ এগারো জেলের নাম উল্লেখ করে সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। নিখোঁজ জেলেদের বাড়ি পাথরঘাটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়। এদের উদ্ধারে ও ট্রলার মালিক সমিতির মাধ্যমে গুরুত্ব সহকারে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

এদিকে এমন খবরে জেলে পরিবারে চলছে উদ্যোগ উৎকণ্ঠা। স্বজনেরা তাকিয়ে আছে জেলেদের ফেরার আশায়।