হারিস মোহাম্মদ, জুড়ী : মৌলভীবাজারের জুড়ীতে পর্নোগ্রাফি আইনে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উপজেলার ফুলতলা ইউপির বটুলী এলাকা থেকে আব্দুস সালামকে গ্রেফতার করে।

বুধবার (৪ জানুয়ারী) গ্রেফতারকৃত আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ফুলতলা ইউপির পূর্ব বটুলি গ্রামের ওসমান আলীর পুত্র ০৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম (৪০) এক যুবতি (১৮) এর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। মন দেয়া-নেয়ার একপর্যায়ে দু’জনের সম্পর্ক গভীরে পৌঁছায়। দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকে প্রেমের সম্পর্ক। এরই মধ্যে সালাম কৌশলে ওই যুবতির একাধিক নগ্ন ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে নেয়। গত বছর মে মাসে আমেরিকা প্রবাসী এক যুবকের সাথে ওই যুবতির বিয়ে হয়ে যায়।

এদিকে বিয়ের পর ফেসবুকে একাধিক ভুয়া আইডি তৈরী করে তাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার নগ্ন ছবি ছড়িয়ে দেয়। এমনকি কয়েকটি ছবি ওই যুবতির আমেরিকা প্রবাসী স্বামীর কাছে পাঠায়। পরে যুবতির ভাই বাদী হয়ে মৌলভীবাজার আদালতে আব্দুস সালামকে আসামী করে পর্নোগ্রাফি আইনে ২০২২ সালের ২২ মে মামলা দায়েরের জন্য আবেদন করেন। পরে আদালত আবেদনটি মামলা হিসেবে রেকর্ডের জন্য জুড়ী থানাকে নির্দেশ দেন।

আদালতের নির্দেশে থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা রেকর্ড হয়। তদন্ত শেষে জুড়ী থানার এসআই অনিক রঞ্জন দাশ ৬ নভেম্বর সালামের বিরুদ্ধে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। সম্প্রতি আদালত সালামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোনা জারি করে।

জুড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মোশাররফ হোসেন বলেন, আব্দুস সালাম ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী। দীর্ঘদিন ধরে পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছিল না। অবশেষ প্রযুক্তি ব্যবহার করে অবস্থান সনাক্ত করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আসামীকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।