বগুড়া অফিস : বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেছেন, জিয়াউর রহমান ১৯ দফার দর্শনে বাংলাদেশের সবকিছু তুলে ধরেছেন। যারা স্বাধীনতার নেতৃত্ব দিয়েছেন বলে দাবি করে তারা সেদিন দেশের গণতন্ত্র ধ্বংস করেছিল। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যের জবাবে টুকু বলেন, আওয়ামীলীগের জন্মইতো জিয়াউর রহমানের বহুদলীয় গণতন্ত্র থেকে।

টুকু বলেন, ‘৭৫ সালে আপনাদের নেতা এবং আপনারা বাকশাল করে নিজেদেরকে নাই ঘোষণা করে দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, আমরা বাকশাল, আওয়ামী লীগ নই। পরে যখন জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্রের মাধ্যমে আ.লীগের পুনর্জন্ম দিয়েছেন।

তিনি বৃহস্পতিবার জিয়াউর রহমানের ৪০তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিএনপি রাজশাহী বিভাগের সমন্বয়ে বগুড়া ও জয়পুরহাট জেলা বিএনপির যৌথ আয়োজনে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বগুড়া জেলা বিএনপি’র আহবায়ক ও বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ এর সভাপতিত্ব ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও বগুড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবুর রহমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি মোঃ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু।

প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।

বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চন্দন, বগুাড়-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেন, বগুড়া জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম ও ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, বগুড়া পৌর সভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশা, বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলী আজগর তালুকদার হেনা, জয়নাল আবেদীন চাঁন, লাভলী রহমান, আহসানুল তৈয়ব জাকির, এম আর ইসলাম স্বাধীন, একেএম খায়রুল বাশার, তৌহিদুল আলম মামুন, এনামুল কাদির এনাম, শেখ তাহা উদ্দিন নাহিন, সহিদ উন নবী সালাম, মনিরুজ্জামান মনি প্রমুখ।

সভায় বগুড়া ও জয়পুরহাট জেলার নেতৃবৃন্দ ও দুই জেলার প্রতিটি উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।