তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্সে দালালদের উৎপাত-দৌরাত্ম দিন দিন বেড়েই চলছে। এ কারণে রুগী ও রুগীর স্বজনরা পড়েছেন চরম বিপাকে।

কর্তৃপক্ষের ঢিলেঢালা নিষেধে দালালদের কোন কর্ণপাতই হচ্ছে না। অনেক রুগী ও তাদের স্বজনদের অভিযোগ- হাসপাতাল সংলগ্ন গুটিকয়েক ফার্মেসী ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লোকজন সেবা নিতে আসা রুগীদের প্রেসক্রিপশন নিয়ে টানাটানির ঘটনা নিত্য-নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে করে চরম বিড়ম্বনার সৃষ্টি হচ্ছে ও অনেক রুগীরা হেনস্তার শিকার হচ্ছেন।

অনেকের অভিযোগ দালালরা হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগে ও হাসপাতাল চত্বরে গিয়ে রুগী ধরে আনতে অপেক্ষমান থাকে। শুধু তাই নয় হাসপাতাল ডিউটির শেষে ডাক্তারের চেম্বারে গিয়েও রুগী নিয়ে আসার জন্য দালালদের ঘুরঘুর করার অভিযোগ শুনা যাচ্ছে।

গতকাল হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগ ও হাসপাতাল চত্বর ঘুরে রুগীদের অন্তহীন অভিযোগ শুনতে হয়েছে। চিকিৎসা নিতে আসা বয়ষ্ক রুগীর এক স্বজন নাসির উদ্দিন বলেন, ‘ভাই কি কইমু, আমার রুগীরে ডাক্তারে পরীক্ষার জন্য একটি টেষ্ট এক্সরে দিয়েছেন। ওই ডাক্তারের রুম থেকে বের হতেই আমার প্রেসক্রিপশন নিয়া টানাটানি শুরু করছে। আমি অপারগ হইয়া বলি, ভাইগো আমার প্রেসক্রিপশনটা দুইজনে ছিঁড়ে নিয়ে যাও আমি পরীক্ষা করবো না।’

অন্য আরেক রোগী জমিলা বেগম বলেন, ‘হাসপাতালে এইডা কি আরম্ভ হইছে, রুগীর প্রেসক্রিপশর-টেষ্ট এক্সরে, আরার রুগী ধইরাও টানাটাননি করে। আমরাতো রুগী হইয়া আরো বিপদে পড়ি।’

চিকিৎসা নিতে আসা রুগী রহিমা বেগম বলেন, ‘আমি ডাক্তার দেখানোর পর হাসপাতালেই আমার পিছ লয় একটা ছেলে বয়েসের বেটা, গেইট পার হলেই আমার হাতে ধরে টানাটানি করে, কয় আইয়গো আমরার ডায়গনেস্টিকে ভালা কইরা কম-সমে পরিক্ষা করাইয়া দিমুনে। আমি না কইয়া আসতেই আরেক জনে ধইরা কয়, ও-বইন আমরারটায় আইয়ো, পরে আমি ছিল্লাইয়া নিজে নিজেই আরেকটা ডায়গনস্টিকে গিয়া এক্সরে পরীক্ষা করাইছি।’

এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মঈন উদ্দিন আলমগীর বলেন, প্রেসক্রিপশন ও রুগীদের নিয়ে টানাটানির বিষয়ে রুগী ও স্বজনরা আমাকে জানিয়েছেন। আমি বিষয়টি শোনার পর হাসপাতাল দালালমুক্ত করতে সাইনবোর্ড টানিয়ে দিয়ে নিষেধ করেছি। এবং কোন ফার্মেসী ও ডায়াগনস্টিকের লোকজনও যাতে এমন কাজ করে আমাদেরকে বিব্রত না করেন তা জানিয়ে দিয়েছি। পরবর্তীতে এমন হলে প্রশাসন ও স্থানীয়দের সহযোগীতায় কঠোর পদক্ষেপ নিবেন বলেও জানান।