কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : জলবায়ু পরিবর্তন সংশ্লিষ্ট বিদেশী অর্থায়নে যেসব প্রকল্প হাতে নেয়া হয় সেগুলো আমাদের দেশের পরিবেশ, প্রতিবেশ ও জীব বৈচিত্রের সাথে সামঞ্জস্যতা রেখে এবং সবার কথা বিশেষ করে ভবিষ্যত প্রজন্মকে মাথায় রেখে বাস্তবায়ন করা উচিত। কিছু কিছু প্রকল্প যেমন, খাল সংকুচিত করে বক্স কালভার্টের মত অন্যান্য কিছু প্রকল্প আমাদের জন্য উপকারের চেয়ে বরং পরিবেশ ও প্রতিবেশের জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। যা আমাদেরকে এবং পরবর্তী প্রজন্মেকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। “জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন: অংশীজনের ভূমিকা ও করণীয়” শীর্ষক অ্যাডভোকেসি সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ কামাল হোসেন এ কথা বলেন।

সম্প্রতি কপ-২৬ সম্মেলনের কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে সম্মেলনে বিভিন্ন প্রস্তাব রাখা হয়েছে। প্রস্তাবগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে একটি সুন্দর পৃথিবী গড়ার জন্য উন্নত বিশ^কে যেমন এগিয়ে আসতে হবে, পাশাপাশি আমাদের মত তৃতীয় বিশে^র সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানকে সম্মিলিতভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবের হাত থেকে রক্ষা করে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নিরাপদ রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করতে হবে।

ঝালকাঠি জেলার সনাক সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন হিমুর সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত অ্যাডভোকেসি সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঝালকাঠি এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মাদ রুহুল আমীন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রাকিব হোসেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জয়নুল আবেদিন, সামাজিক বনায়ন-নার্সারী ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউল ইসলাম। এছাড়া বক্তব্য রাখেন ইয়ুথ নেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস, ঝালকাঠির সমন্বয়ক তন্ময় চন্দ অভি।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ঝালকাঠির আয়োজনে অ্যাডভোকেসি সভায় জলবায়ু অর্থায়ন সংক্রান্ত মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টশন উপস্থাপন করেন টিআইবি’র এরিয়া কোঅর্ডিনেটর মিজানুর রহমান। তিনি জলবায়ু পরিবর্তন: কী, কারন, প্রভাব, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বৈশ্বিক ও জাতীয় পর্যায়ে গৃহিত পদক্ষেপসমূহ এবং জলবায়ু তহবিল ব্যবস্থাপনায় সুশাসন নিশ্চিতে টিআইবি’র অভিজ্ঞতা/উদ্যোগসমূহসহ জলবায়ু তহবিল ব্যবস্থাপনায় সুশাসন নিশ্চিতে অংশীজনদের ভূমিকা ও করণীয় বিষয়সমূহ উপস্থাপন করেন।

২৫ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) বিকেলে আয়োজিত অ্যাডভোকেসি সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঝালকাঠি সনাকের জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন বিষয়ক উপকমিটির আহŸায়ক ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির (দুপ্রক) সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম তালুকদার। সনাকের পক্ষ থেকে তিনি সুনির্দিষ্টভাবে কয়েকটি প্রস্তাবনা পেশ করেন। প্রস্তাবনাগুলো হলো- চলমান প্রকল্পের তথ্য প্রকাশ, প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় জনগণের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা, নাগরিক সনদ স্থাপন, নিজস্ব ওয়েব পোর্টাল আপডেট করন, স্বচ্ছ বিডিং প্রক্রিয়া।

সনাক সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন হিমু বলেন, সকলের আলোচনা থেকে জানা গেলো যে, ঝালকাঠিতে জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প নেই বললেই চলে। তবে যেগুলো আছে সেগুলোর সঠিক বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা জরুরী। ঝালকাঠির যে ৮টি বড় খাল ছিল সেগুলো ভরাট করা হচ্ছে এবং সেখানে ড্রেন নির্মান করা হচ্ছে। আগামীতে একটি সুন্দর বাংলাদেশ থাকবে কিনা সে বিষয়ে চ্যালেঞ্জ দেখা দিয়েছে। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে জলবায়ু অর্থায়ন ছাড়াও জলবায়ুর সাথে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পগুলো যেন কার্যকরভাবে বাস্তবায়িত হয় সেজন্য এখানে যারা উপস্থিত হয়েছেন তারাসহ আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। সুখী, সমৃদ্ধ ও সোনার বাংলা গড়তে হলে জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে।

ইয়ুথ নেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস, ঝালকাঠির সহ-সমন্বয়ক খুরশিদ জাহান, ঝালকাঠি সনাকের সহ-সভাপতি ড. কামরুন্নেছা আজাদ, ছালেক আজাদ খান সোহাগ, সদস্য একেএম শামসুল আলম বেলাল, শিমুল সুলতানা হেপি, স্বজন সদস্য হামিদা খানম, ইয়ুথ এনগেজমেন্ট এন্ড সাপোর্ট (ইয়েস) গ্রুপের সদস্যগণ ও টিআইবি’র কর্মীবৃন্দ সভায় অংশগ্রহন করেন।