তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ : বর্তমান সময়ের সাড়া জাগানো জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী তাপস ইকবালের ৪৫তম শুভ জন্মদিনে পা রাখলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার অসংখ্য শুভাখাঙ্খী ও শ্রোতা বিভিন্নভাবে জন্মদিনের শুভেচ্ছ জানান। তিনি ১৯৭৭ সালের আজকের এই দিনে তার মায়ের পৈতৃক বাড়ী ময়মনসিংহের কেওয়াটখালীতে জন্মগ্রহণ করেন। তারপর নিজ পৈতৃক নিবাস নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলায় বেড়ে ওঠেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের গর্বিত সন্তান। তাঁর পিতা মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার উদ্দীন আহমেদ।

পারিবারিক ভাবেই তার চাচা মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা আতহার উদ্দীন আহমেদ এঁর কাছেই সঙ্গীতের হাতেখড়ি তার। বিগত দিনে তার সাড়া জাগানো এলবাম গুলোর মধ্যে রয়েছে, এক জোড়া চোখ, বাবার মতো, মেঘ, নৌকা-মধুকর, আজ হৃদয়ে। যৌথ এলবাম রয়েছে অনেক।

নেত্রকোনা শিল্পকলা একাডেমি থেকে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শেখা শুরুর পর ঢাকায় বুলবুল ললিতকলা একাডেমি থেকে উচ্চাঙ্গ সংগীত এবং রবীন্দ্র সঙ্গীতে ডিপ্লোমা করেন তিনি। ব্যক্তিগত ভাবে তিনি শিখছেন বিখ্যাত সুরকার আজাদ রহমান, আখতার সাদমানী, করিম শাহাবুদ্দিন, তিমির নন্দী এবং মঙ্গল চন্দ্র এঁর কাছে।

তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি এবং বাংলাদেশ টেলিভিশন এর নিয়মিত শিল্পী। করোনাকালে তিনি ‘তাপস ইকবাল’ নামের ফেইসবুক পেইজ চালু করেন যেখানে তিনি তার নিজের কম্পোজিশনে গান তৈরি করে প্রকাশ করেন, এবং বিপুল সাড়া পাচ্ছেন, সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে দিন দিন তিনি ফেইসবুক লাইভে শুধু মাত্র হারমোনিয়াম বাজিয়ে গান করে বিপুল ভক্ত ও স্রোতাদের মন জয় করছেন।

তিনি ফেইসবুক লাইভে সাধারণত উপমহাদেশের বিখ্যাত সুর সাধক মান্নাদে, হেমন্ত মুখপাদ্যায়, সতীনাথ মুখপাদ্যায়, কিশোর কুমার, মানবেন্দ্র মুখপাদ্যায়, পিন্টু ভট্টাচার্য, সুবীর সেনসহ, দেশীয় সাড়াজাগানো শিল্পী সুবীর নন্দী, কুমার বিশ্বজিৎ, আব্দুল জব্বার এঁরমত গুণী জনপ্রিয় শিল্পীদের গানসহ তাঁর বেশকিছু জনপ্রিয় মৌলিক গান গেয়ে থাকেন। হারানো দিনের গানগুলোকে আরো জনপ্রিয় করে তোলাও তার এই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে কাজ করছেন।

তিনি ছোটবেলায় তার বড় চাচা মরহুম বীরমুক্তিযোদ্ধা আতাহার উদ্দিন আহমেদের কাছ থেকে গান শিখেন। এর মধ্য তার জনপ্রিয়তা পাওয়া গানগুলির মধ্যে রয়েছে ‘প্রজাপতি হয়ে মন’, ‘কারণে অকারণে’ বাড়ি আমার মোহনগঞ্জে, ভূবন চিল, লাই, কোন কারিগর, সোনা বন্ধুয়ারে, আকাশ জুড়ে রটনা, সহ আরো অনেক গান।

পেশাগত জীবনে তিনি একজন কণ্ঠশিল্পী হিসেবেই পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন, এছাড়া তিনি এই করোনাকালে দেশে এবং দেশের বাইরে অনলাইনে প্রচুর শিক্ষার্থীদের গান শেখাচ্ছেন।

তাপস ইকবাল’র শুভ জন্ম দিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, সিলেট জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদ, বিশিষ্ট চলচিএ নির্মাতা গাজী মাজহারুল আনোয়ার, মিউজিক ডিরেক্টর মহিদুল হাসান মন, উপমহাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মরহুম বশির আহমেদ এর কন্যা হুমায়রা বশীর, কণ্ঠশিল্পী সুপ্তি মতিন, হাওর গবেষক বিশিষ্ট কবি রইস মনরম, সিলেট প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সাংবাদিক আবদুল কাদের তাপাদর প্রমুখ।

জন্মদিন প্রসঙ্গে তাপস ইকবাল এই প্রতিবেদক কে বলেন, ‘অনেক অনেক শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছার জবাব দিয়ে দিয়েই দিনটি কেটে গেলো। শত-শত ভালোবাসায় আমি সিক্ত, অবাক হয়ে গেছি এই ভেবে যে, মানুষ এত ভালোবাসে আমাকে! এভাবেই সবার ভালোবাসা পেতে চাই সবসময়, সবাইকে আমার হৃদয় থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ।’