ময়মনসিংহ অফিস : বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন, শুধু ৫ জানুয়ারী বা ৩০ ডিসেম্বর নয়, আওয়ামী সরকারের ১৩ বছরের প্রতিটি দিনই কলঙ্কজনক দিবস। পুরো শাসনামল জুড়েই তারা গণতন্ত্র হত্যা করে ভোটের অধিকারসহ মানবাধিকার হরণ ও দুর্নীতি-লুটপাট করে কর্তৃত্ববাদী দুঃশাসন কায়েম করেছে।

বুধবার গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহ নগরীর নতুনবাজার দলীয় কায়ালয়ের সামনে মহানগর এবং দক্ষিণ জেলা বিএনপি আয়োজিত পৃথক মানববন্ধন কর্মসুচীতের প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারী রাজনৈতিক দল ও ভোটারবিহীন নির্বাচনের নামে নির্লজ্জ প্রহসন হয়েছিল বলে ৫ জানুয়ারী ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালন করছে বিএনপি। কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর অংশ হিসেবে মহানগর বিএনপির কর্মসুচীতে বক্তব্য রাখেন আহ্বায়ক অধ্যাপক এ কে এম শফিকুল ইসলাম, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ, যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক শেখ আমজাদ আলী।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির মানববন্ধন কর্মসুচীতে বক্তব্য রাখেন যুগ্ম আহ্বায়ক আলমগীর মাহমুদ আলম, ফখরউদ্দিন আহমদ বাচ্চু, শুক্কুর মাহমুদ ববি, আখতারুল আলম, সদস্য হেলাল আহমেদ, দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি রোকনুজ্জামান সরকার রোকন, শ্রমিক দলের সভাপতি আবু সাঈদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শহীদুল আমিন খসরু, কৃষক দলের সভাপতি সাদেকুর রহমান, ছাত্রদলের সভাপতি মাহবুবুর রহমান রানা।

সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, সরকার জনগণকে ভয় পায় বলেই ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। জনগণ ভোট চোর এই সরকারকে এক মুহুর্ত ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সরকারের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে প্রতিটি সমাবেশে মানুষের বাঁধ ভাঙ্গা জোয়ার প্রমান করে জনগণ এই সরকারকে চায় না। অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবী পুর্নব্যক্ত করে তিনি বলেন, দেশনেত্রীর কিছু হলে সরকারকেই দায়ী থাকতে হবে।