ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : জেএসডি সভাপতি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক আ স ম আবদুর রব বলেছেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন, নিরাপদ সড়কের আন্দোলন, উচ্চশিক্ষায় ভ্যাট বসানোর প্রতিবাদে আন্দোলন এবং সর্বশেষ হাফ পাস এর দাবিতে আন্দোলনরত নিষ্কলুষ কিশোর কিশোরীদের প্রতিবাদকে পিটিয়ে ঠান্ডা করার পরিণতি ‘বড়ো বিদ্রোহের’ জন্ম দিবে।

স্কুল কলেজের ছাত্ররা ন্যায্য সঙ্গত দাবি-দাওয়া, উই ওয়ান্ট জাস্টিস এর দাবি নিয়ে, বঞ্চনার বিরুদ্ধে মাঠে আন্দোলনরত থাকলে সরকারের প্রশ্রয়ে ছাত্রলীগের নামধারীদের হামলা এবং বলপ্রয়োাগের মহড়া নতুন করে রক্তপাতের ক্ষেত্র প্রস্তুত করছে।

ছাত্রদের বিদ্রোহই ১৯৭১ সালে সারা জাতির মননে স্বাধীনতার স্বপ্ন বপন করে দেয়। একইভাবে বর্তমানে আন্দোলনরত ছাত্রদের উপর হামলা ও নির্মমতার বিপরীতে প্রচন্ড ছাত্র গণজাগরণের সৃষ্টি হবে এবং সরকারকে চরম খেসারত দিতে হবে।

ছাত্রলীগের আহবায়ক তৌফিকুজ্জামান পিরাচার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দলের সাথে চলমান ছাত্র আন্দোলন প্রশ্নে মতবিনিময় কালে আসম রব উপরোক্ত বক্তব্য প্রদান করেন। ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় আ স ম রবের উত্তরাস্থ বাস ভবনে। বৈঠকে জেএসডি স্থায়ী কমিটির সদস্য তানিয় রব উপস্থিত ছিলেন।

আ স ম রব আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার বিষয়টি ঐতিহাসিক ১১ দফা আন্দোলনের অন্যতম দাবি ছিল। সে দাবি পাকিস্তান সরকার মেনে নিলেও স্বাধীনতার ৫০ বছরেও তা নিশ্চিত হয়নি। হাফ ভাড়ার বিষযয়ে অবশ্যই রাষ্ট্রীয় হস্তক্ষেপ প্রয়োজন,আইনগত এর ভিত্তি দিতে হবে। নতুবা ছাত্র, অভিভাবক সর্বোপরি শিক্ষা ব্যবস্থা চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়বে।

ছাত্রদের আন্দোলন যে কোনো সময় দাবানলের মত ছড়িয়ে পড়বে। আজ ছাত্রদেরকেই অন্যায় বেআইনি ও দুর্বৃত্ত নির্ভর উপনিবেশিক রাষ্ট্রব্যবস্থার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। ছাত্ররাই ছাত্র-গনঅভ্যুত্থানের সূচনা করবে এবং আগামী দিনের বাংলাদেশ নিরাপদ করবে।

মতবিনিময় সভায় তৌফিকুজ্জামান পীরাচা, জাহিদ জসিম, যোবায়ের রহমান, নাহিদুল ইসলাম, সিয়াম ইমতিয়াজ, সাব্বির হোসেন মতিউর রহমান এবং জাহিদুল ইসলাম রিয়াজ প্রমূখ ছাত্র নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।