ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ‘গুলিতে’ ছাত্রদল নেতা নয়ন মিয়ার (২২) মৃত্যুর ঘটনায় জড়িত পুলিশ সদস্যদের শাস্তি চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা ছাত্রদল।

রোববার (২০ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে জেলা শহরের পাওয়ার হাউজ রোড থেকে মিছিল বের করেন ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। এতে বিএনপি ও যু্বদল এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরাও অংশ নেন।

মিছিলটি পাওয়ার হাউজ রোড ঘুরে কালীবাড়ি মোড় আসার পর পুলিশি বাধার কারণে সামনে এগুতে পারেনি। পরে কালীবাড়ি মোড়েই বিক্ষোভ সমাবেশ করেন মিছিলকারীরা।

জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রুবেল চৌধুরী ফুজায়েলের সভাপতিত্বে সমাবেশ বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাফিজুর রহমান মোল্লা ও জহিরুল হক, জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম এবং জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মাহমুদ প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন- গতকাল বাঞ্ছারামপুরে পুলিশ বিনা উস্কানিতে শান্তিপূর্ণ মিছিল ও লিফলেট বিতরণে বাধা দিয়ে ছাত্রদল নেতা নয়নকে গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় জড়িত পুলিশ সদস্যদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না করা হলে দুর্বার আন্দোলন করার হুঁশিয়ারী দেন বক্তারা।

এর আগে গতকাল শনিবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরের মোল্লাবাড়ি এলাকায় বিএনপির মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশের সাথে বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালায় পুলিশ। এতে গুলিবিদ্ধ হন বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহসভাপতি নয়ন মিয়া। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর রাত সাড়ে ৭টায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হন আরও অন্তত ১০ জন।