শরীয়তপুর প্রতিনিধি : চোরাই মোটরসাইকেল ও অটোরিক্সাসহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে শরীয়তপুর জেলা পুলিশ। শরীয়তপুরের বিভিন্ন এলাকায় ও অন্যান্য জেলায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে প্রেরণ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

আজ সোমবার দুপুরে পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে এই তথ্য নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নড়িয়া সার্কেল মো. মিজানুর রহমান, নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব রহমান প্রমুখ।

জেলা পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, কিছু দিন আগে পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শ একেএম শহিদুল হক এর বাড়ি থেকে ২টি মোটরসাইকেল চুরি হয়। এই মামলার সুত্র ধরে বিভিন্ন প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রথমে চোর চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের মাধম্যে চুরির রহস্য উদঘাটন করতে শুরু করে।

এর পর পুলিশ একে একে চোর চক্রের মুলহোতা হত্যা, মাদক, ডাকাতি, চুরি ও অস্ত্রসহ ১৮ মামলার আসামী সখিপুরের আব্বাস বেপারী, ৩টি চুরি মামলার আসামী দুলাল খা, শতাধিক মোটরসাইকেল চোর নড়িয়ার স্বপন মাদবর, পালং এর দবির তালুকদার ও পটুয়াখালী জেলার দশমিনার খায়রুল চোকদারকে গ্রেফতার করে। পরে তাদের দখল থেকে ৬টি মোটরসাইকেল ও ১টি অটোরিক্সা উদ্ধার করে। পুলিশ সুপার ও নড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনায় অভিযান পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে নড়িয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক হায়দার আলী।

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার এস.এম. আশরাফুজ্জামান বলেন, এই চোর চক্রটি দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে থাকে। চুরির কৌশল হিসেবে তারা বিভিন্ন সময় কল মিস্ত্রী, রাজমিস্ত্রী সেজে এলাকায় ঘোরাফেরা করে মোটরসাইকেলের সন্ধান করে। পরবর্তীতে সুযোগ বুঝে সেই মোটরসাইকেল চুরি করে। এবার মোটরসাইকেল চোর চক্রের মূলহোতাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। রিমান্ডে এনে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো তথ্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে।