নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর সেনবাগে রান্না করার চুলোর আগুনে পুড়ে জীবন্ত দগ্ধ হয়ে ভাই-বোনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

মৃত আবদুল্লাহ আল নোমান (১০) ও লামিয়া সুলতানা মাহি (৩) উপজেলার ৮নং বিজবাগ ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের বীর নারায়ণপুর গ্রামের আহম্দ আলী বেপারী বাড়ির মো.ইকবাল হোসেন ও গোলাপী দম্পত্তির সন্তান।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে পারিবারিক কবরস্থানে পাশাপাশি কবরে দুইজনকে দাফন করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার ১০ মে দুপুর ১২ টার দিকে সেনবাগ উপজেলার ৮নং বিজবাগ ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের বীর নারায়ণপুর গ্রামের আহম্দ আলী বেপারী বাড়িতে চুলার আগুন থেকে সৃষ্ঠ অগ্নিকান্ডে ওই বাড়ির হোটেল মেসিয়ার মো.ইকবাল হোসেনের দুই ছেলে-মেয়ে আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা যায়।

খবর পেয়ে সেনবাগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুন নাহার, স্থানীয় বিজবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম উদ্দিন কাজল, ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, সেনবাগ থানার এসআই আবদুলর আউয়াল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

দুই শিশুকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে নিহতের মা গোলাপী বেগম ও পিতা ইকবাল হোসেন। পুরো এলাকায় শোকের ছায়া বিরাজ করছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বীর নারায়ণপুর গ্রামের আহমেদ ব্যাপারী বাড়ি ইকবালে স্ত্রী গোলাপী বেগম দুপুরের রান্ন বান্না শেষে দুই সন্তান নোমান ও মাহিকে গোসল করিয়ে ঘুম পাড়িয়ে, তিনি নিজে গোসল ও বাচ্ছাদের কাপড় ধোয়ার জন্য পুকুরে যান। এর মধ্যে রান্না করার মাটির চুলার আগুন থেকে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হলে মুহুর্তের মধ্যে আগুন বসতঘরের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

এ সময় ঘুমিয়ে থাকা দুই শিশু আবদুল্লাহ আল নোমান ও লামিয়া সুলতান মাহি জীবন্ত দগ্ধ হয়ে মারা যায়। আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হলেও ততক্ষনে ওই দুই শিশু পুড়ে মারা যায়।