চট্টগ্রাম ব্যুরো : জামালখানে বিএনপির সমাবেশস্থলে নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের হাতাহাতি হয়

নগরের জামালখান প্রেস ক্লাবের সামনে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির মানববন্ধন ও সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে বিএনপির ১৫ থেকে ২০ নেতাকর্মী ও ৩ পুলিশ সদস্যের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দিন।

তিনি জানান, শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন শুরুর পর বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য ইট-পাটকেল ছোঁড়ে। আমরা পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেছি। এখন পর্যন্ত ৪৪ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এই সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আমিনুল ইসলামসহ ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে বুধবার (৫ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে নগর বিএনপির মানববন্ধন ও সমাবেশ শুরু হয়। দুপুর থেকে নগরের বিভিন্ন ওয়ার্ড ও থানা থেকে নেতাকর্মীরা জড়ো হতে থাকে সমাবেশস্থলে। তবে এ বিক্ষোভের মাঝেও চেরাগী পাহাড় মোড় থেকে জামালখান সড়কে গাড়ি চলাচল সচল রাখে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। শুরু হয় পুলিশের সাথে কথা কাটাকাটি। একপর্যায়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ছোঁড়া হয় ইট-পাটকেল। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য প্রেস ক্লাব চত্বর থেকে সরিয়ে দেয় নেতাকর্মীদের।

এ কর্মসূচিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চট্টগ্রাম নগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন ও সদস্যসচিব আবুল হাশেম বক্করসহ বিএনপির নেতারা উপস্থিত ছিলেন। তারা ঘটনাস্থল থেকে মানববন্ধন শেষ না করে ফিরে যেতে বাধ্য হন।

বিএনপি নেতাদের দাবি, শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে পুলিশ বাধা দিয়েছে। পুলিশের লাঠিচার্জে ১৫ থেকে ২০ নেতাকর্মী আহত হয়। তারা নগরের বিভিন্ন হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।