চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী আবদুল জব্বারের বলীখেলা ও বৈশাখী মেলা শুরু হচ্ছে আজ রোববার থেকে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী শনিবার লালদিঘি পাড়স্থ আবদুল জাব্বারের বলীখেলা ও বৈশাখী মেলা কার্যালয়ে বলীখেলার ট্রফি ও জার্সির মোড়ক উম্মোচন করেন।

আয়োজকরা জানান, ঐতিহাসিক লালদিঘি মাঠের কাছে জেলা পরিষদ চত্বরে ২৫ এপ্রিল সোমবার বলীখেলা এবং লালদিঘির আশপাশ এলাকায় ২৪, ২৫ ও ২৬ এপ্রিল রোববার, সোমবার ও মঙ্গলবার তিনদিন মেলা চলবে।

মোড়ক উম্মোচনকালে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শতোর্ধ বর্ষের লোক-ঐতিহ্য আবদুল জাব্বার সওদাগরের বলীখেলা দেশপ্রেম ও স্বদেশী চেতনাকে সমুন্নত রাখে।

আবদুল জব্বার সওদাগর বিটিশবিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনে যুব সমাজকে সম্পৃক্ত করতে একশত তেরো বছর আগে ঐতিহ্যবাহী এই বলীখেলার সূচনা করেন। কালের পরিক্রমায় এই বলীখেলা বৈশাখী মেলা হিসেবে পরিচিতি অর্জন করেছে।

আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহর লাল হাজারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বলীখেলা ও মেলা কমিটির সহসভাপতি ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদ চৌধুরী ফরিদ, সাধারণ সম্পাদক শওকত আনোয়ার বাদল, সাংগঠনিক সম্পাদক জামাল হোসেন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর রুমকি সেনগুপ্ত, মো. চঞ্চল প্রমুখ।

মো. রেজাউল করিম চৌধুরী আরো বলেন, আবদুল জব্বারের বলীখেলার সাথে আমাদের লোকায়ত সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের যোগসূত্র রয়েছে। বিগত দু’বছর করোনা অতিমারির থাবায় বলীখেলা হয়নি। এবার পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকায় লালদিঘি মাঠের বিকল্প স্থানে চট্টগ্রামবাসীর আকাক্সক্ষা অনুযায়ী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আবদুল জাব্বারের বলীখেলা আয়োজনে দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। তাই আমি রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করে বলীখেলা ও মেলা যাতে সফলভাবে সম্পূর্ণ হয় সে ব্যাপারে সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করি।

এদিকে, ঐতিহ্যবাহী আব্দুল জব্বারের বলীখেলা ও বৈশাখী মেলা উপলক্ষে লালদিঘি অভিমুখী সকল প্রকার যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণের কথা জানিয়েছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)।

শনিবার বিকেলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (জনসংযোগ) শাহাদত হোসেন রাসেল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, মেলা উপলক্ষে এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বিপুল সংখ্যক ক্রেতা, বিক্রেতা ও দর্শনার্থীর সমাগম হয়। মেলায় আগত লোকজনের সমাগমের কারণে মেলাকেন্দ্রিক আশপাশ এলাকায় আগামীকাল রোববার থেকে মঙ্গলবার লালদিঘি অভিমুখী সকল প্রকার যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে। আন্দরকিল্লা মোড় থেকে বক্সিরহাট-লালদিঘিগামী রাস্তা বন্ধ থাকবে। জেলা পরিষদ মার্কেট থেকে টেরিবাজার-আন্দরকিল্লাগামী রাস্তা, সিনেমা প্যালেস থেকে কেসি দে রোড হয়ে সোনালী ব্যাংক পর্যন্ত রাস্তা, জহুর হকার্স/মহল মার্কেট থেকে বাটা ক্রসিং পর্যন্ত রাস্তা, টেরিবাজার ফুলের দোকান থেকে টেরিবাজারগামী রাস্তা, আমানত শাহ মাজার রোডের মুখ থেকে টেরিবাজারগামী রাস্তায় যনবাহন চলাচল করতে পারবে না।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং রোগীদের আসা-যাওয়ার জন্য সিএমপি সব ধরণের সহায়তা দেবে। টেরিবাজার, খাতুনগঞ্জ, আসাদগঞ্জ, চাক্তাইগামী সব ধরণের পণ্যবাহী গাড়ি, বড় গাড়ি রাজাখালী দিয়ে প্রবেশ করে মেরিন ড্রাইভ রোড দিয়ে বের হয়ে যাবে।