আব্দুর রাজ্জাক, ঘিওর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের ঘিওরে শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় সড়ক দ‚র্ঘটনায় নিহত প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মনিরকে স্মরন করা হয়েছে। স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পন, মানববন্ধন, বৃক্ষরোপন, স্মৃতিচারণ মুলক আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসুচী পালন করেছে বিভিন্ন সংগঠন। এছাড়া এই কর্মসুচী থেকে ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া সড়কে রেল লাইন সংযোগের দাবী জানানো হয়।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার জোকা এলাকায় দুর্ঘটনাস্থলে স্মৃতিস্তম্ভের পাশে যৌথভাবে মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব, তারেক মাসুদ-মিশুক মুনীর স্মৃতি পরিষদ, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন বাস্তাবায়ন আন্দোলন কমিটি, বারসিক, রেইনবো থিয়েটার, আলোর পথ, ইয়ুথ গ্রীণ ক্লাব, কবি নজরুল-প্রমীলা সাহিত্য ও সাংষ্কৃতিক পরিষদ, কাকজোর গোল্ডেন স্পোটিং ক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে এসব কর্মস‚চী পালন করা হয়। সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ তারেক মাসুদ-মিশুক মনির স্মৃতি ফলকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এর আগে দুর্ঘটনাস্থলে নিরাপদ সড়কসহ বিভিন্ন দাবীতে আধা ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।

মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম ছারোয়ার ছানুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট দিপক ঘোষ, মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক অতীন্দ্র চক্রবর্তী বিপ্লব, বারসিকের জেলা সম্বনয়কারী বিমল রায়, তারেক মাসুদ-মিশুক মনির স্মৃতি পরিষদের সাধারন সম্পাদক রিপন আনসারী, সাংবাদিক রামপ্রসাদ সরকার দিপু, আব্দুল মোমিন, রেইনবো থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা নাট্য পরিচালক গিনি আলম, বারসিক প্রতিনিধি সুবীর সরকার, বারসিকের গবেষক নজরুল ইসলাম, কাকজোর গোল্ডেন ক্লাবের সভাপতি সাদিকুর রহমান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা নিহত তারেক মাসুদ-মিশুক মুনীরের দুর্ঘটনা কবলিতস্থানে তাদের স্মরনে একটি ভাষ্কর্য নির্মান ও ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া সড়কে রেল লাইনের দাবী জানান। মানববন্ধন শেষে বানিয়াজুরী এলাকায় তারেক মাসুদ-মিশুক মুনির স্মরনে স্মৃুতিচারন মুলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তারেক মাসুদ-মিশুক মনির স্মৃতি পরিষদের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক রিপন আনসারীর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন ইকবাল হোসেন কচি, অ্যাডভোকেট দিপক ঘোষ, বিমল রায়, গিনি আলম ও সাংবাদিক আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।

উলে­খ্য, ২০১১ সালের ১৩ আগষ্ট সকালে কাগুজের ফুল সিনেমার সুটিং স্পট দেখে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার শালজানা গ্রাম থেকে ঢাকা ফিরছিলেন প্রখ্যাত চলচিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ, তার স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ, বিশিষ্ট সাংবাদিক মিশুক মুনীরসহ ৯ জনের একটি দল। পথিমধ্যে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ঘিওর উপজেলার জোকা নামক এলাকায় তাদের বহনকৃত মাইক্রোবাসটি পৌছালে বিপরীত গামী চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহরে বাসের সঙ্গে সংর্ঘষ বেধে যায়। এসময় মাইক্রোস বাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। মাইক্রো বাসের ভেতরে থাকা তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ প্রডাকশন সহকারী ওয়াসিম,জামাল এবং মাইক্রোবাস চালক মুস্তাফিজুর রহমানসহ ৫জন নিহত হন। সেই দুর্ঘটনায় আহত হন তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ,চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিল্পী ঢালী আল মামুন ও তার স্ত্রী দেলোয়ারা বেগম জলি।