মনজুর আহমদ, গোয়াইনঘাট : তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের চাপের মুখে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ৪নং লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন যুবলীগ নেতা গোলাম কিবরিয়া রাসেল।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার পর ২৯ অক্টোবর শুক্রবার লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উদ্যোগে গোয়াইনঘাট উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আয়োজিত এক সমাবেশে গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মোঃ গোলাম কিবরিয়া রাসেলকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অত্র ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিফত উল্লাহ এবং ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি চেরাগ আলী, ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল আহমদ প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত ১৯ অক্টোবর মঙ্গলবার গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভোটে প্রাথমিক ভাবে নৌকার প্রার্থীতার জন্য বিজয়ী হন গোলাম কিবরিয়া রাসেল।

লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের তৃণমূলের ২০টি ভোটের মধ্যে গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য গোলাম কিবরিয়া রাসেল পেয়েছিলেন ১১ ভোট এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুজিবুর রহমান পেয়েছিলেন ৮ ভোট।

পরবর্তীতে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নের জন্য গোয়াইনঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম কিবরিয়া রাসেল এবং গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুজিবুর রহমানের নাম আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রেরণ করেন।

যার প্রেক্ষিতে গত ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাক্ষরিত মনোনয়ন ফরমে লেঙ্গুড়া ইউনিয়নে মুজিবুর রহমানকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে অনুমোদন দেন।

জনপ্রিয়তার দিক থেকে তলানিতে থাকা ব্যক্তিকে লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করায় ক্ষুব্ধ হন স্থানীয় তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। যার প্রেক্ষিতে শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা সমাবেশের মাধ্যমে গোলাম কিবরিয়া রাসেলকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা এবং নির্বাচনী কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন।