মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাটে ট্রেনের সাথে দুর্ঘটনায় কবলিত ড্রাম ট্রাক   

মিরসরাই প্রতিনিধি : মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাট রেলক্রসিংয়ে ট্রেনের সঙ্গে ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষে ট্রাকের হেলপার (চালকের সহকারি) নিহত ও চালক আহত হয়েছেন। বুধবার (২২ জুন) রাত দেড়টায় ঢাকামুখী লেইনে তূর্ণা নিশিতা এক্সপ্রেস ও বারইয়ারহাটমুখী বালু ভর্তি ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষে এই ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম মো. মোরছালিন (১৯)। সে লক্ষীপুর জেলা সদরের আন্দারমানিক এলাকার শামসুল আলমের পুত্র। আহত হয়েছেন ট্রাকের চালক শাহ আলম (৪০)। সে লক্ষীপুর পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড বাঞ্চনগর গ্রামের সুজা মিয়ার পুত্র। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা বলেন, ঘটনার সময় গেটম্যান মো. আনোয়ার হোসেন তার রুমে ঘুমাচ্ছিলেন। তার জন্য দুর্ঘটনা ঘটে। সে প্রায় সময় ঘুমে থাকে। যাত্রীবাহী কোন যানবাহন দুর্ঘটনার কবলে পড়তো তাহলে প্রাণহানির ঘটনা আরো বাড়তো।

চিনকীআস্তানা রেল ষ্টেশন মাস্টার মো. সিরাজুল হক বলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বারইয়ারহাট রেলক্রসিং এলাকায় মহানগর তূর্ণা নিশিতা এক্সপ্রেসের সাথে বালু বোঝায় একটি ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এতে ১ জন নিহত ও ১ জন আহত হয়েছে। শুনেছি গেইটম্যান ঘুমিয়ে ছিলো। দুর্ঘটনার জন্য গেটম্যান দায়ী কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সীতাকুন্ড রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খোরশেদ আলম বলেন, বুধবার রাত দেড়টায় বারইয়ারহাট রেলক্রসিং এলাকায় চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকামুখী লাইনে ঢাকাগামী মহানগর তূর্ণা নিশিতা এক্সপ্রেসের সাথে করেরহাট থেকে আসা বালু বোঝায় একটি ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষ ঘটে। এতে ট্রাকের চালক ও হেলপার গুরুত্বর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তাননগর নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৩ টার সময় হেলপার মোরছালিনের মৃত্যু হয় হয়। এছাড়া চালক শাহ আলমের অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা প্রেরণ করা হয়েছে। লাশের সুরতহাল করে পরিবারের কাছে হস্তানন্তর করা হয়েছে।