বগুড়া অফিস : চেয়ারম্যান পদে নৌকার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ না নেওয়াকে কেন্দ্র করে বগুড়ার গাবতলী উপজেলার সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৯ নেতা-কর্মী দল থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন। শনিবার বিকেলে তারা ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির কাছে অব্যাহতি পত্র তুলে দেন।

যারা অব্যাহতি চেয়েছেন তারা হলেন- সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার সাহা, দপ্তর সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক উদয় সিংহ, উপ প্রচার সম্পাদক পিন্টু মিয়া, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সুমন কর্মকার, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক মিঠু অধিকারী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোক্তার আলী, সদস্য সাধন সরকার ও ৫নং ওয়ার্ড কমিটির সদস্য খোকন সরকার।

আগামী ১৫ জুন সুখানপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের বগুড়া জেলা কমিটির সদস্য আলমগীর রহমান। তবে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে তার বিরুদ্ধে ভোট যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন দলটির গাবতলী উপজেলা কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক লতিফুল বারী মিন্টু। তবে দলের মনোনয়ন না পেয়ে তিনি দল থেকে পদত্যাগ করেছেন।

দলীয় সূত্রগুলো জানায়, নির্বাচনে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী আলমগীর রহমানের পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় অংশ না নিয়ে নিষ্ক্রিয় থাকায় দলের পক্ষ থেকে সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার সাহা, দপ্তর সম্পাদক আনোয়ার হোসেন এবং উপ-প্রচার সম্পদাক পিন্টু মিয়াকে শুক্রবার শোকজ করা হয়।

সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নীলাদ্রি শেখর বিদু স্বাক্ষরিত ওই শোকজের জবাব শনিবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে দিতে বলা হয়েছিল। তবে তার আগেই ওই ৩ নেতাসহ তাদের অনুসারী আরো ৬ জনসহ মোট ৯ জন শোকজের জবাবের পরিবর্তে সরাসরি অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন।

সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নীলাদ্রি শেখর বিদু অব্যাহতির আবেদন পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন, তাদের আবেদন পেয়েছি।

অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করার কারণ জানতে চাইলে সুখানপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার সাহা বলেন, আমরা এবার নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি না।