গাজীপুর প্রতিনিধি : বিতর্কিত বক্তব্যের কারণে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম দল থেকে আজীবন বহিষ্কার হয়েছেন। এরপর তার মেয়র পদে থাকা নিয়েও তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। ফলে অনেকেই গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সর্বোচ্চ পদটি পেতে উদগ্রীব হয়ে উঠেছেন।

৫৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত দেশের বড় এই সিটি করপোরেশনে সে ধরনের আলামতও দৃশ্যপটে আসতে শুরু করেছে। মেয়র ও প্যানেল মেয়রের জন্য ইতোমধ্যে প্রচারণায় অনেককেই মেতে উঠতে দেখা গেছে।

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য পদ স্থগিত ঘোষণার পর থেকেই বিভিন্ন এলাকায় কর্মীরা তাদের পছন্দের নেতাদের নামে ব্যানার, ফেস্টুন বানানো শুরু করে দিয়েছেন।

এসব ব্যানার পোস্টার যার যার ফেসবুক ওয়ালে শেয়ারও দিচ্ছেন তারা। এদের মধ্যে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল, সিটি করপোরেশনের ৩৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল্লাহ আল মামুন মন্ডলকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র অথবা প্যানেল মেয়র, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. সাইফুল ইসলামকে মেয়র হিসাবে দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন অনেকেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, যেহেতু দলীয় প্রতিকে জাহাঙ্গীর মেয়র হয়েছিলো। তাই আমরা আশাবাদী স্থানীয় সরকার তার বিরুদ্ধে দ্রুত একটি ব্যবস্থা নিবে। এরপরেই নতুন মেয়র নির্বাচন হবে।

এ জন্য অনেকেই ইচ্ছে প্রকাশ করছে। তবে আপাতত তার মেয়র পদ গেলে প্যানেল মেয়রের মাধ্যমে চলবে।

উল্লেখ্য, ৩২৯ দশমিক ৯০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের গাজীপুর সিটি করপোরেশন ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৮ সালে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন জাহাঙ্গীর আলম।