খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : খোলা সয়াবিন তেলের দাম লিটারে বাড়লো ৪৪ টাকা। আর বোতলজাত তেলের দাম বাড়ানো হলো লিটারে ৩৮ টাকা। বাণিজ্যসচিবের সঙ্গে মিল মালিকদের বৈঠকের পর সব ধরনের তেলের দাম বাড়ানো হলো।

বাজারে বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ৩৮ টাকা বাড়িয়ে ১৬০ টাকা থেকে এখন ১৯৮ টাকায় বিক্রি হবে। খোলা সয়াবিন তেল আগে বিক্রি হতো প্রতি লিটার ১৩৬ টাকা। এখন প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন বিক্রি হবে নতুন দাম অনুযায়ী ১৮০ টাকা। অর্থাৎ খোলা তেলের দাম লিটার প্রতি ৪৪ টাকা বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়া পাম তেলের দাম ৪২ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১৭২ টাকা। যা আগে ছিল লিটার প্রতি ১৩০ টাকা।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স ও বনস্পতি ম্যানুফাচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম ১৯৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর ৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন বিক্রি হবে ৯৮৫ টাকায়। এ ছাড়া খোলা সয়াবিন তেল ১ লিটার ১৮০ টাকা ও পাম তেল ১ লিটার বিক্রি হবে ১৭২ টাকায়।

কয়েক মাস আগেও বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটার ছিল ১৩৪ টাকা করে। গত ৬ ফেব্রুয়ারি তা নির্ধারণ করা হয় ১৬৮ টাকায়। ব্যবসায়ীরা মার্চ থেকে লিটারে আরো ১২ টাকা বাড়িয়ে ১৮০ টাকা করতে চেয়েছিল। কিন্তু সরকার রাজি না হলে সেদিন থেকে বাজারে সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয়।

এরপর সরকার ভোজ্যতেল উৎপাদন ও বিক্রির ওপর থেকে ভ্যাট পুরোপুরি আর আমদানিতে ৫ শতাংশ রেখে বাকি সব ভ্যাট প্রত্যাহার করে নেয়। পরে গত ২০ মার্চ লিটারে আট টাকা কমিয়ে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম ঠিক করা হয় ১৬০ টাকায়। সেদিন ৫ লিটারে ৭৯৫ টাকা থেকে কমিয়ে ৭৬০ টাকা এবং খোলা সয়াবিনের দাম ১৪৩ টাকা থেকে কমিয়ে ১৩৬ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

জানা গেছে, বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে সয়াবিন তেলের দেশের বাজারে মূল্য সমন্বয়ের বিষয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় বাণিজ্য সচিবের সঙ্গে বৈঠকে বসেন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স ও বনস্পতি ম্যানুফাচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। ওই বৈঠকের পরে বিকেলেই সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।