সফিয়ার রহমান রতন, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি : ক্যান্সার থেকে বাঁচতে দেশের বিত্তবানদের কাছে সহায়তা চেয়েছেন শামীমা আক্তার ফাতেমা নামের এক সাবেক গার্মেন্টস কর্মী।

ডোমার পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রোকেয়া বেগমের স্বামীর নাম আনোয়ার হোসেন। ডোমার সদর ইউনিয়নের আন্ধারুর মোড় নামক স্থানে তিনি ছোট একটি চায়ের দোকান করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

ক্যান্সারের চিকিৎসা করতে অনেক টাকার প্রয়োজন। যা ফাতেমার স্বামীর পক্ষে খরচ যোগান দেয়া অসম্ভব। তাই দেশের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহায়তার চেয়েছেন ফাতেমা এবং তার স্বামী আনোয়ার হোসেন।

স্বামী-স্ত্রী দুজনে গার্মেন্টসে চাকুরি করতেন। দীর্ঘদিন পর সুখের সংসারে ঘর আলো করে ফাতেমার কোলে আসে এক ছেলে ইব্রাহিম(৫) ও এক মেয়ে মারিয়ম(৩)। পরে তারা ডোমার পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডে এক টুকরো জমি কিনে স্থায়ী নিবাস গড়ে।

ফাতেমা জানান, এ বছরই আমার টিউমার অপারেশন করতে গিয়ে আমার শরীরে ক্যান্সার ধরা পরে। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনী চিকিৎসক অধ্যাপক শাহানা পারভীনের পরামর্শে ঢাকার মহাখালী জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনিস্টিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসা নেই। ডাক্তার বলেছেন ৬টি কেমো থেরাপি ও ১টি রেডিও থেরাপি দিতে হবে। অনেক কষ্টে সর্বস্ব বিলিন করে ৩টি কেমো থেরাপি দিয়েছি। তৃতীয় থেরাপি দেই গত ২৫ নভেম্বর। পরবর্তী চিকিৎসা করার মতো আর কোন উপায় নেই। সংসারে যা ছিলো সব শেষ।

ফাতেমা বর্তমানে জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনিস্টিউট ও হাসপাতালের মেডিকেল অনকোলজী বিভাগের রেজিস্ট্রার ডাঃ আনোয়ার হোসেনের তত্বাবধানে চিকিৎসা করছেন।

পরবর্তী চিকিৎসার খরচ যোগাতে এবং ক্যান্সার থেকে বাঁচতে দেশের বিত্তবানদের কাছে সহায়তা চেয়েছেন ফাতেমা এবং তার স্বামী। আনোয়ার হোসেনের মোবাইল নাম্বার – ০১৯১৫২৪৬৪৪৯ (বিকাশ)