কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি : কুলাউড়ারর গোবিন্দপুর গ্রাম থেকে বিউটি বেগম (২২) নামে ২ সন্তানের জননী এক প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্বার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে ৪টার দিকে লাশ উদ্বার করে কুলাউড়া থানা পুলিশ। এদিকে নিহত বিউটি বেগমের পিতা ইউপি সদস্য সাইস্থা মিয়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে নিহতের শশুড় ও ননদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, কাদিপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের মধ্যপ্রাচ্যের সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী পায়েল আহমদের স্ত্রী বিউটি বেগমকে বৃহস্পতিবার সকালে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে কুলাউড়া থানার এসআই আনোয়ার ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃবধুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। গৃহবধুর ৩ বছরের যমজ দু’টি সন্তান রয়েছে।

নিহত গৃহবধুর বাবা হাজীপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার সাইস্তা মিয়া অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় বিউটির শ^শুড় বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে আত্মহত্যার খবর জানানো হয়। আমরা গিয়ে দেখি মেয়ের লাশ ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে তবে পা খাটের সাথে লাগানো। তিনি অভিযোগ করেন, তার মেয়েকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়া চেষ্টা চলছে।

কুলাউড়া থানার এসআই আনোয়ার জানান, গৃহবধুর বাবার বাড়ি উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের উত্তর পলকী গ্রামে। স্বামীসহ পারিবারের সাথে বিরোধ ছিলো। ইতিপূর্বে পারিবারিক বিরোধ নিয়ে সালিশ বৈঠকও হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেক কাদিপুর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূর লাশ উদ্বারের সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি জানান, গৃহবধুর লাশ উদ্বার করে পোষ্ট মর্টেমের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। এবং নিহতের পিতার বাড়ীর লোকজনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধুর শ^শুড় আব্দুল কাইয়ুম (৬০) ও ননদ জেসি (২৫) কে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে হত্যা না আত্মহত্যা তা জেনে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।