বগুড়া অফিসকাহালু সংবাদদাতা : বগুড়ার কাহালুতে বালু উত্তোলনের কারণে পুকুরের সমন্ত পানিসহ প্রায় ২শ’ থেকে আড়াইশ’কেজি মাছ সুড়ঙ্গ পথে ভূগর্ভে নেমে গেছে।

জানা গেছে, কাহালু উপজেলার পাইকড় ইউনিয়নের বাগইল পশ্চিম পাড়ার মৃত আবর আলীর ছেলে নুরুল ইসলামের একটি ছোট পুকুরে হঠাৎ করে গত ১৮ জুলাই ১০-১২ ফিট উঁচু হয়ে পানি উপরে উঠতে থাকে। আকস্মিক এই ঘটনায় স্থানীয় লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এর কিছুক্ষণ পর পুকুরের পানি স্থির হয় এবং একদিন পর বুধবার বিকেলের দিকে পুকুরের সমস্ত পানিসহ মাছ উধাও হয়ে যায়।

এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজনের মাঝে ভায়-ভীতি ও আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। কিছু সাহসী ব্যক্তি পানিশূন্য পুকুরের কাঁদা মাটিতে নেমে পানি ও মাছ ঊধাও হওয়ার বিষয়টি অনুসন্ধানের এক পর্যায় পুকুরের মাঝখানে একটি সুড়ঙ্গ দেখতে পায়। এরপর কিছু ব্যক্তি বিষয়টি অলৌকিক বলে প্রচার করতে থাকায় আশপাশের গ্রাম থেকে জনগণ দলে দলে তা দেখার জন্য ছুটে আসেন।

সরেজমি গিয়ে বিষয়টি দেখে ও স্থানীয় প্রবীণ লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রায় ২০-২৫ বছর পূর্বে পুকুরের ওই স্থান থেকে মেশিনের সাহায্যে অনেক বালু উত্তোলন করা হয়েছিল। তাদের ধারণা ঐ বালু উত্তোলনের ফলে মাটির নীচে ফাঁকা হয়ে পড়ে।

এরপর দীর্ঘ ২০-২৫ বছর পুকুরে পানি থাকলেও কয়েকদিনে অতিরিক্ত গরমের ফলে নীচের পানির (জোয়ার) স্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রথমে ওই সুড়ঙ্গ দিয়ে পানি উপরে উঠে এবং কিছুক্ষণ পরে সড়ঙ্গ পথে মাছসহ পানি ভূগর্ভে নেমে গেছে।