কাজী খলিলুর রহমান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় পৃথক দুটি দুর্ঘটনায় মোসাঃ সাজেদা বেগম ও এনজিও (আশাকর্মী) মোঃ ইয়ামিন হোসেনের মৃত্যু হয়।

মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর দুপুরে কাঠালিয়া আমুয়া সড়কের জিরো পয়েন্টে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় পূর্ব পাটিখালঘাটা গ্রামের সোহরাব খানের স্ত্রী মোসাঃ সাজেদা বেগম (৬৫) গুরতর আহত হন, পরবর্তীতে বরিশাল যাওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়। অপরদিকে বড় কাঠালিয়া গ্রামের মোঃ শাহ আলমের পুত্র রাজাপুর আশা অফিসের কর্মী মোঃ ইয়ামিন হোসেন (২৫) গোসল করার সময় পা পিচলে পুকুরে পড়ে মৃত্যু হয়।

সাজেদা বেগম চিকিৎসার জন্য আমুয়াস্থ এ্যাপোলো ডায়াগানিস্টিক সেন্টারের যাচ্ছিলেন, এমন সময় আকরাম হাওলাদাদেরর চালিত মটর সাইকেলটি বৃদ্ধাকে ধাক্কা দেয়। তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে গুরতর অসুস্থ্য অবস্থায় আমুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

বরিশাল যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। অন্যদিকে বড় কাঠালিয়া গ্রামের শাহ আলমের পুত্র ইয়ামিন রাজাপুর আশা অফিসে চাকুরী করেন। ইয়ামিন স্ত্রী সন্তান নিয়ে রাজাপুরেই বসবাস করতেন। প্রতিদিনের ন্যয় আজও দুপুরে বাসা সংলগ্ন পুকুরে গোসল করতে যান, এ সময় পা পিচ্ছে পুকুরে পরে ডুবে যায়। পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশিরা ইয়ামিনের জুতা পানিতে ভাসতে দেখে পুকুরে খোঁজা-খুজি শুরু করেন। এ সময় পুকুর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আগামী দিন ২৭ অক্টোবর বুধবার বড় কাঠালিয়ায় নামাজই জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।