রিয়াদ মাহমুদ সিকদার, কাউখালী প্রতিনিধি : গণ শৌচাগার-সংকটে ভুগছে পিরোজপুরের কাউখালী বন্দরের ব্যবসায়ী ও ক্রেতা সাধারণরা। পিরোজপুর জেলার অন্যতম ব্যবসায়িক কেন্দ্র কাউখালী বন্দরে সপ্তাহের শুক্র ও সোমবার এই দুইদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বাজার বসে। এ ছাড়া প্রতিদিন কেনাকাটার জন্য ক্রেতা ও বিক্রেতারা বাজারে ভিড় করেন।

এখানে ধান, চাল, শুপারী, পান, আমড়া, শীতল পাটি, মৃৎশিল্প সহ নানা দেশীয় পন্যের পর্যাপ্ত সরবরাহের ফলে সপ্তাহের দু’দিন ঢাকা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, বরিশাল সহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্রেতা ও বিক্রেতারা এখানে বানিজ্যের উদ্দেশ্যে আসে।

এ বাজারে রয়েছে প্রায় এক হাজার ছোট বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এ বন্দরের ক্রেতা সাধারণের জন্য নেই উল্লেখযোগ্য কোন গণ শৌচাগারের ব্যবস্থা।

এমনকি এ বন্দরের অধিকাংশ মার্কেট মালিকরাও তাদের মার্কেটে কোন প্রকার টয়লেটের ব্যবস্থা না রেখে পরিবেশের চেয়ে টাকার প্রধান্য বেশী মনে করে মার্কেট সম্পন্ন করে। এ কারণে ক্রেতাসাধারণ সহ বন্দরের ব্যবসায়ীরা এখানে সেখানে সুযোগ বুঝে তাদের প্রয়োজনীয় কাজ সেরে নেয়। এর ফলে নষ্ট হচ্ছে এ বন্দরের পরিবেশ। তবে এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী সমস্যার সম্মুক্ষীন হতে হয় মহিলা ক্রেতাদের।
বন্দরে নাম মাত্র ২/৩ টি গন শৌচাগার থাকলেও তা ব্যবহারের অনুপযোগি।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ বাজারের ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মাওদুদ খান বলেন, প্রয়োজনীয় টয়লেট না থাকায় বাজারে আসা ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়েরই সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

কাউখালী সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা প্ল্যান করে বাজারের উত্তর ও দক্ষিণ এবং ঘন বসতি এলাকায় প্রয়োজনীয় শৌচাগার নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহণ করব।