ময়নুল হক পবন, কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানকে (৩৫) কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত হয়ে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খান।

এদিকে কমলগঞ্জের কর্মরত সাংবাদিকরা শনিবার রাতে স্থানীয় কমলগঞ্জের কাগজ পত্রিকা কার্যালয়ে এক সভায় মিলিত হন। সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফÍার ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবীতে আজ রবিবার দুপুরে প্রতিবাদ সমাবেশ শুরুর কথা রয়েছে।

এদিকে সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানের উপর হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রোববার সকালে দুইজনকে পুলিশ থানায় এনেছে বলে জানা গেছে। তবে তাৎক্ষনিকভাবে তাদের নাম ঠিকানা জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খান শনিবার দুপুরে উবাহাটা নামক স্থানে পৌছলে দুটি মোটর সাইকেলে ৪-৫ জনের একদল ধারালো অস্ত্রধারী দুর্বৃত্ত ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার গতিরোধ করে এলোপাতাড়ি কুপাতে থাকে। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে সন্ত্রাসীরা চলে গেলে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আব্দুল বাছিত খান দৈনিক খবরপত্র পত্রিকায় কাজ করেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান চলছে।

এদিকে কমলগঞ্জের কর্মরত সাংবাদিকরা শনিবার রাতে স্থানীয় কমলগঞ্জের কাগজ পত্রিকা কার্যালয়ে এক সভায় মিলিত হন। সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফÍার ও শাস্তি নিশ্চিতের দাবীতে আজ রবিবার দুপুরে প্রতিবাদ সমাবেশ শুরুর কথা রয়েছে।

কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পেশাগত দায়িত্বপালন শেষে উপজেলা সদরে আসার পথে দিনদুপুরে সন্ত্রাসীরা একজন সাংবাদিককে কুপিয়ে এক হাতের কবজি পর্যন্ত কেটে ফেলেছে। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম করেছে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। ওসমানী মেডিকেলে ইতিমধ্যে অস্ত্রপাচার হলেও এখনও তাহার অবস্থা শোচনীয় বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন।