• ২০২১ সালে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, শচীনের সম্পত্তির মোট পরিমাণ এক হাজার কোটি টাকারও বেশি।
  • শচীন বার্ষিক প্রায় ১৯ কোটি টাকা আয় করেন বিজ্ঞাপন থেকে।

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : রোববার ঊনপঞ্চাশে পা দিয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার। ক্রিকেটে শচীনের রেকর্ড তো সকলেরই জানা। মাঠের বাইরে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণও বেশ ঈর্ষণীয়। সবচেয়ে ধনী ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম ‘মাস্টার ব্লাস্টার’। ২০২১ সালে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, শচীনের সম্পত্তির মোট পরিমাণ এক হাজার কোটি টাকারও বেশি।

ক্রিকেট ছেড়ে দেওয়ার পরেও আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের মেন্টর হিসাবে যুক্ত রয়েছেন তিনি। এ ছাড়াও রয়েছে বিজ্ঞাপনের কাজ। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক শচীনের সম্পত্তির বিবরণ।

আইপিএলের থেকে শচীনের আয় কত? ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত তিনি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে খেলেছেন। প্রথম তিন মরশুমে প্রতি বছর তিনি ৪ কোটি ৪৮ লক্ষ টাকা পেয়েছেন। পরের তিন মরশুম তিনি অর্জন করেছেন ৮ কোটি ২০ লক্ষ টাকা। ক্রিকেটার জীবন শেষ হলেও মুম্বই ছেড়ে যাননি তিনি। ২০২১ সালে জানা গিয়েছিল, দলের মেন্টর হিসাবে তিনি প্রতি মরশুমে ৪ কোটি টাকা পান।

বিজ্ঞাপনেও যথেষ্ট জনপ্রিয় মুখ শচীন টেন্ডুলকার। বিখ্যাত কয়েকটি ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তিনি। খেলার দুনিয়ায় বিখ্যাত নাম অ্যাডিডাসের মুখ শচীন। এ ছাড়াও মিউচুয়াল ফান্ড ‘সহি হ্যায়’, ভিসা ক্রেডিট কার্ড প্রভৃতি প্রথম সারির বিজ্ঞাপনের প্রধান মুখ শচীন। ২০২১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শচীন বার্ষিক প্রায় ১৯ কোটি টাকা আয় করেন বিজ্ঞাপন থেকে। এ ছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়া থেকেও প্রতি পোস্ট পিছু আয় করেন তিনি। মুম্বইতে একটি রেস্তরাঁও আছে শচীনের।

বরাবরই গাড়ির ভক্ত শচীন। তাঁর গ্যারেজে বিলাসবহুল গাড়ির বহর। ২০২১ সালে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মোট সাতটি গাড়ি রয়েছে শচীনের। এর মধ্যে রয়েছে চারটি বিএমডব্লিউ গাড়ি। দুই কোটি থেকে আড়াই কোটির মধ্যে দাম এই গাড়ি গুলির।

এ ছাড়া রয়েছে দুই কোটি টাকা মূল্যের একটি ফেরারি। ৪৫ লক্ষ টাকার একটি মার্সিডিজ রয়েছে শচীনের গ্যারাজে। নিসানের একটি গাড়িও রয়েছে ‘লিটল মাস্টার’-এর। এ ছাড়াও বিভিন্ন ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে বিনিয়োগ রয়েছে শচীনের। সেখান থেকেও লভ্যাংশ হিসাবে আয় করেন শচীন।

খেলা ছেড়ে দিয়েছেন আট বছর আগেই। কিন্তু আজও বিজ্ঞাপন জগতের অন্যতম পছন্দ শচীন টেন্ডুলকার। তরুণ ক্রিকেটারদের রোল মডেল এখনও শচীন টেন্ডুলকারই। মাঠে নেমে দাপট না দেখালেও, শচীন ম্যানিয়া অব্যাহত।