বঙ্গোপসাগরের দুবলারচর এলাকায় ফিশিংবোট ডুবিতে উদ্ধার হওয়া ১৫ জেলে মাঝেরকেল্লা সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নিয়েছে। ছবি: খোলাবার্তা২৪

শেখ মোহাম্মদ আলী, সুন্দরবন অঞ্চল প্রতিনিধি : উত্তাল বঙ্গোপসাগরে পাঁচটি ফিশিংবোট ডুবিতে চারজন জেলের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকালে সাগরের আশারচর এলাকা থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।সাগরে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার হওয়া ১৫ জেলে সর্বস্ব হারিয়ে দুবলার মাঝেরকেল্লা সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নিয়েছে ।

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় উত্তাল বঙ্গোপসাগরের দুবলারচর, আশারচর, নারিকেলবাড়ীয়া, মাঝেরকেল্লা এলাকায় সাগরে পাঁচটি ফিশিংবোট ডুবে যায়। সাগরে ভাসমান ডুবে যাওয়া বোটের জেলেরা অন্য ফিশিংবোটের সহায়তায় বেঁচে আসলেও চারজন জেলে মারা যায়।

এদের মধ্যে বরগুনার পাথরঘাটার চরলাঠিমারা গ্রামের আঃ রাজ্জাক মিয়ার মালিকানাধীন এফবি আল্লারদান বোটের জেলে সরোয়ার (৩০), মনির (২৮) ইব্রাহিম (৩৫) সাগরের আশারচর এলাকায় ফিশিংবোট উল্টে সাগরে ডুবে মারা যায় তাদের লাশ বুধবার উদ্ধার করা হয়েছে এবং দক্ষিণ চরদুয়ানী গ্রামের ফিশিংবোট মালিক রুহুল খান (৫০)।

দুবলা অফিসকেল্লা এলাকায় সাগরে ফিশিংবোট উল্টে ডুবে মারা যায়। জেলেপল্লী দুবলা ফরেষ্ট টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রলাদ চন্দ্র রায় জানান, মৃত বোট মালিক রুহুল খানের লাশ তার স্বজনরা বুধবার বাড়ীতে নিয়ে গেছে। এ ছাড়া সাগরের নারিকেলবাড়ীয়া ও দুবলারচরের দক্ষিণে গভীর সাগরে আরো দুইটি ফিশিংবোট ডুবে গেছে বলে জেলেরা জানিয়েছে।

দুবলা ফিসারমেন গ্রুপের চেয়ারম্যান মোঃ কামাল উদ্দিন জানান, তার জেলেরা মঙ্গলবার বিকেলে দুবলার মাঝেরকেল্লা এলাকায় সাগরে ডুবে যাওয়া পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার হেতালিয়া গ্রামের হারুন মিয়ার ফিশিংবোট শাহজালাল-২ এর সর্বস্ব হারানো ১৫জন জেলেকে উদ্ধার করে মাঝেরকেল্লা সাইক্লোন শেল্টারে ফিসারমেন গ্রুপের হেফাজতে রেখে জেলেদের প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী সরবরাহ করছেন এবং জেলেদের নিজ নিজ বাড়ীতে নিরাপদে পৌছানোর ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানান।

পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে সাগরে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার হওয়া ১৫ জেলে মাঝেরকেল্লা সাইক্লোন শেল্টারে দুবলা ফিসারমেন গ্রুপের হেফাজতে সুস্থ্য রয়েছেন বলে জানান।