এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও (কক্সবাজার) : কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে কৃষক-কৃষাণীর মুখে হাসি ফিরিয়েছে আমন ধান। কৃষকরা আমন চাষে মনোযোগী হওয়ায় ও প্রকৃতির আনুকূল্য পাওয়ায় এবার আমনের ফলন ভালো হয়েছে। কয়দিন ধরে সোনালি আমন ঘরে তোলার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কৃষাণ-কৃষাণীরা। আনন্দ আর উৎসাহ নিয়ে আমন ধান কাটার উৎসব চলছে।

ঈদগাঁও উপজেলার সর্বত্র এখন আমন ফসলের মাঠে এখন পাকা ধান। অগ্রহায়ণের উজ্জ্বল রোদে কৃষকের মুখের হাসি আরো ঝলমল করছে। গ্রামে-গ্রামে নবান্নের সাজ সাজ রব। মাঠে মাঠে কৃষকেরা কাস্তে নিয়ে ধান কাটার উৎসবে নেমে পড়েছেন। শীতের সকাল থেকে শুরু করে পড়ন্ত বিকেল পর্যন্ত মাঠে-মাঠে ফসল কর্তনের চিরাচরিত দৃশ্য এখন সর্বত্রই স্থানজুড়ে। খুশিতে উৎফুল্ল ধান চাষীরা।

পুরনো জিনিসকে ডিঙ্গিয়ে আধুনিক যন্ত্রের সাহায্যে ধান মাড়াই, বাছাই আর শুকানোর কাজে এখন ব্যস্ততার ধুম পড়েছে কৃষক পরিবার। অধিক জমিতে সোনা রাঙা আমন ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

৩০ নভেম্বর সকালে ঈদগাঁও ভোমরিয়াঘোনা, পালপাড়া, মাইজ পাড়া, মেহেরঘোনা,কালিরছড়া, এলাকায় বিভিন্ন ফসলের মাঠ ঘুরে ভালো ফলন আর কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিকের চিত্র চোখে পড়ে। আমন পাকা ধানে বিস্তৃত সোনালি রঙের ঢেউ। অনেকে উৎসবের আনন্দে ধান কাটছে।

ধান কাটতে আসা চাষী আলম জানান, মাঠজুড়ে সোনালী ধান দেখে আনন্দে বুক ভরে গেছে। এবার বিগত বছরের তুলনায় ফলন ভাল হয়েছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকতা জিকু দাশ সুব্রত জানান, কৃষকদেরকে ভালভাবে পরামর্শ দেয়ার কারনে এবার আমন ধানের ফলন হয়েছে শতকরা ৯০ ভাগ ফসলী জমিতে। চারেদিকে মৌ মৌ গন্ধে ছড়িয়ে পড়েছে সোনালী ধান।