নোয়াখালী প্রতিনিধি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য ও নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মো. হানিফ মৃত্যুবরণ করেছেন। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত কারণে তিনি নানা রোগে ভুগছিলেন।

শনিবার (৪ ডিসেম্বের) সকাল ১১টার ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালের ৫৫৪নং কেবিনে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৮৫ বছর।

নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন ও মরহুমের ভাতিজা মিজানুর রহমান পলাশ এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তাঁর মৃত্যুতে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ তিন দিনের শোক কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

১৯৩৫ সালে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার ৮নং সোনাপুর ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের মৌলভী ইব্রাহীম সাহেবের বাড়িতে তার জন্ম হয়। তিনি তিন ছেলে ও দুই মেয়ে ছাড়াও অগণিত শিক্ষার্থী, ভক্ত অনুরাগী রেখে গেছেন।

জীবদ্দশায় অধ্যাপক মো.হানিফ ৬ দফা আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণসহ তৎকালীন সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। তিনি ১৯৭৩ সালের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নোয়াখালী-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ এছাড়া তিনি নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এ খ্যাতিমান শিক্ষক, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, নোয়াখালী ৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ এ এইচ এম খায়রুল আনাম চৌধুরী সেলিম, যুগ্ম-আহ্বায়ক এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, নাট্যকার ও পরিচালক হিুম আকরাম, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান প্রমূখ।