গোয়ায় বিশিষ্টদের সঙ্গে বৈঠকে মমতা

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোয়ায় এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, গোয়ায় তিনি বহিরাগত নন। তিনি যেমন বাংলার মেয়ে, তেমনই গোয়ারও মেয়ে। গোটা ভারতেরই মেয়ে তিনি। শুক্রবার সৈকত রাজ্য গোয়ায় বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে এক সান্ধ্য বৈঠকে এ কথা বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার সকালেই পানাজিমে গোয়ার তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকেও মমতা বলেছিলেন, ‘‘আমি বহিরাগত নই। আমি বাংলার মেয়ে, ভারতের মেয়ে। বাংলার মতো গোয়াও আমার মাতৃভূমি।’’ এর পরই বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে ‘বহিরাগত’ কটাক্ষ করেছিলেন বিজেপি-র সর্বভারতীয় তথ্য-প্রযুক্তি সেলের প্রধান অমিত মালব্য। টুইটে তিনি লিখেছিলেন, ‘গোয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বহিরাগত। বাংলায় বিভাজনমূলক প্রচার চালিয়েছিলেন তিনি। তিনি দাবি করেন, তিনি ধর্মনিরেপক্ষ। বাংলায় বিজেপি কর্মীদের খুন, ধর্ষণ করেছিল তাঁর দলের কর্মীরা, বিশেষত মুসলমানরা। তিনি কোনও কথা বলেননি। ওঁর হাতে রক্ত আছে।’

এর পর আবার সন্ধ্যায় বিশিষ্টদের সঙ্গে বৈঠকে মমতা বললেন, ‘‘আমি বহিরাগত নই। আমি যেমন বাংলার মেয়ে, তেমনই গোয়ার মেয়ে। আমি আপনাদের বোনের মতো। বাংলাও আমার মাতৃভূমি, গোয়াও আমার মাতৃভূমি।’’ সেই সঙ্গে তাঁর সংযোজন, ‘‘আমি ভারতের যে কোনও জায়গায় যেতে পারি। যেতে পারি না অসম, উত্তরপ্রদেশে। এখানে আসার আগে আমার পোস্টার ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে। ত্রিপুরায় তো মারধর করেই যাচ্ছে।’’

বিজেপি-র বিরুদ্ধে বিভেদের রাজনীতির অভিযোগ তুলে মমতা বললেন, ‘‘বিজেপি মানুষের মনে বিদ্বেষ তৈরি করার চেষ্টা করছে। আমরা বিভাজনের রাজনীতি করি না। বিভেদমূলক রাজনীতিকে আমরা কখনওই প্রশ্রয় দিই না। গোয়ায় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষা করব আমরা।’’

গোয়ায় আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে নজরে রেখেই এগোচ্ছে জোড়াফুল শিবির। সেই দিকেই ইঙ্গিত করে মমতা বললেন, ‘‘যা বলব, করে দেখাব। রাজনীতিকদের এটাই নীতি হওয়া উচিত। গোয়ায় এসে খুব ভাল লাগল। আবার আসব।’’