চট্টগ্রাম ব্যুরো : আনোয়ারা উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য ‘নিয়োগপ্রাপ্ত’ দু’জন প্রিসাইডিং অফিসারের অপসারণ চেয়ে রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন এক চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী।

রির্টানিং অফিসার এবং আনোয়ারা উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার কাছে আজ সোমবার এ অভিযোগ দিয়েছেন ওই ইউনিয়নের ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. আমীন শরীফ।

লিখিত আবেদনে তিনি অভিযোগ করেন, ৩ নং রায়পুর ইউনিয়নের দুটি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য ‘নিয়োগ’ পেয়েছেন স্থানীয় খানসামা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিনপ্রিয় বড়ুয়া এবং অগ্রণী ব্যাংক, আনোয়ারা শাখার ব্যবস্থাপক সবুজ মহাজন৷

একই ইউনিয়নে তার প্রতিদন্ধী নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জানে আলমের সাথে গত ২ ডিসেম্বর একাধিকবার গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছেন জিনপ্রিয় বড়ুয়া ও সবুজ মহাজন। আমীন শরীফের আশংকা আসন্ন নির্বাচনে এ দুজন প্রিসাইডিং অফিসার তার প্রতিদন্ধী প্রার্থীর পক্ষে প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে ‘কাজ’ করবেন। অবাধ এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে এ দুজন প্রিসাইডিং অফিসারের অপসারণ জরুরি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রির্টানিং অফিসার এবং আনোয়ারা উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘দুই প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে আপত্তি উত্থাপনকারী আমীন শরীফের সাথে আজ সন্ধ্যায় বিষয়টি নিয়ে বৈঠক হয়েছে। তাকে বলেছি-এ মুহুর্তে ওই দুজন প্রিসাইডিং অফিসারকে অপসারণ সম্ভব নয়৷ পাল্টাতে হলে রায়পুর ইউনিয়নে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য নিয়োগপ্রাপ্ত ৯জন প্রিসাইডিং অফিসারকে সরাতে হবে।’

ঘােড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আমীন শরীফ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি তো জিনপ্রিয় বড়ুয়া এবং সবুজ মহাজনের বিরুদ্ধে আপত্তি তুলেছি। পুরো ইউনিয়নের প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে নয়।’

আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়েদ বলেন, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।