মোঃ সামছুল আলম, আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসুতি বিদ্যা বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডাঃ সুচিতা রানী ঘোষ প্রতিবছর পুজার ছুটিতে বগুড়ার আদমদীঘি কুসুম্বি গ্রামে এসে আনন্দ উল্লাস করে সময় না কাটিয়ে আর্তমানবতার সেবায় ফ্রি চিকিৎসা ওষুধপত্র দিয়ে নিজেকে ব্যস্ত রাখছেন নিয়মিত ৪/৫ বছর ধরে।

যখন সবাই রিলাক্স ও আনন্দ উল্লাস করেন তখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসুতি বিদ্যা বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডাঃ সুচিতা রানী ঘোষ ও তার স্বামী জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের হাড় ও জোড়া বিশেষজ্ঞ অর্থোঃ সার্জন ডাঃ সঞ্জয় কুমার ঘোষ হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসবে, এলাকার মানুষের কল্যানে নিজেদের ব্যস্ত রাখেন।

প্রায় ৪/৫ বছর ধরে প্রতি দুর্গাপূজায় নবমীর দিন থেকে তাঁরা বিনা মুল্যে রোগী দেখেন এবং ওষুধপত্র দিয়ে থাকেন। ডাঃ সুচিতার দেবর সেনগুপ্ত বলেন প্রতি বছর তারা ৩/৪ দিন ধরে রোগীদের এভাবে সেবা দিয়ে থাকেন। তার প্রায় এক/ দেড় হাজার রোগী দেখে থাকেন। তাতে সব মিলিয়ে এলাকার রোগীরা প্রায় ৩/৪ লাখ টাকার মুল্যের সেবা পেয়ে থাকেন এলাকার মানুষ।

কুসুম্বি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ফজলুর রহমান বলেন “আমাদের আদমদীঘির অনেক বড় মাপের ডাক্তার রয়েছেন, তারা যদি এভাবে বছরের বিভিন্ন সময় সুযোগ-সুবিধা মত এলাকায় রোগীদের সেবার ব্যবস্থা করেন তাহলে এলাকার গরীব ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষ উপকৃত হবে।” এভাবে ডাঃ সঞ্জয় ও তার স্ত্রী এলাকায় এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।