আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের আবুল কালাম আজাদের ছেলে সুরুজ (৩২) গলায় দড়ি দিয়েও বেঁচে গেলেন। সুরুজ রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সুরুজ কেন গলায় দড়ি দিয়েছিলো এ ব্যাপারে বাবা আজাদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। গ্রামবাসি সূত্রে জানা গেছে সুরুজ বেশ কয়েক বছর আগে বিয়ে করে এবং তাঁর মাহিসা নামে প্রায় ৩ বছর বয়সি একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

তিনি ব্যবসায় লোকসান করে বেকার জীবন যাপন করছিলেন। ঘটনার দিন সোমবার বিকেল আনুমান ৫ টায় বাড়ির বারান্দায় ছাদের তীরের সাথে গলায় দড়ি দেন।

বাড়ির লোকজন সাথে সাথে দেখতে পেয়ে গ্রীল ভেঙে তাকে উদ্ধার করে। প্রথমে তাকে আদমদীঘি হাসপাতালে নিয়ে গেলে রেফার করা হয়।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে তার চাচা রায়হান মঙ্গলবার সকালে জানান সুরুজ এখন কথাবার্তা বলছে। কর্তব্যরত ডাক্তার জানিয়েছেন সুরুজ সুস্থ হয়ে উঠবেন।