তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ : পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, নির্বাচন চর্চার বিষয়। মারামারি হানাহানির বিষয় নয়। আগামী সংসদ নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে এটাই জাতি আশা করে।

তিনি শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির আয়োজনে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে রিপোর্টার্স ইউনিটির পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মতিউর রহমান, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য শামীমা আক্তার খানম, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুট।

জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ এহসান শাহ, সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র নাদের বখত, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপল উপস্থিত ছিলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে আসবে কি না সেটি তাদের বিষয়- এটা আমরা বলতে পারবো না। তবে আমরা চাই, সবাই নির্বাচনে আসুক। আমাদের অনেক রাজনীতিবিদ প্রতিদিন এই নিয়ে অনেক কথা বলছেন, আপনারা নিশ্চয়ই শুনছেন। বিএনপি যদি দেশের সংবিধান মেনে থাকে দেশের আইন মানে তা হলে তাদের অবশ্যই নির্বাচনে আসা উচিত। নির্বাচন চর্চার বিষয়। মারামারি হানাহানির নয়। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এটাই জাতি আশা করে।’

তিনি বলেন, ‘আমি ছোট একটি মন্ত্রণালয় নিয়ে কাজ করি। কোন জেলায় কী কাজ হচ্ছে তা আমার দফতরের সাইনবোর্ডে লেখা থাকে। আমাদের হাওর এলাকা সব সময় অবহেলিত। এখন একটি বড় কাজ হচ্ছে, সেটি হল সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেটি হাওর এলাকার জন্য অনেক বড় মাইলফলক। উচ্চ শিক্ষার যে স্বপ্ন সেটি এখন হাওরবাসী পূরণ করতে পারবে। ইতিমধ্যে উপাচার্য নিয়োগ হয়েছে। ধীরে ধীরে আরও কাজ হবে আশা করি।’

এম এ মান্নান বলেন, ‘দ্রব্যমূল্য ইতিমধ্যে নিয়ন্ত্রণে এসেছে, আরও আসবে। আমরা সবসময় চেষ্টা করি, মানুষ যাতে স্বস্তির মধ্যে থাকে। বিশ্বব্যাপী সংকট চলছে। এ জন্য আমাদেরকে আরও সাশ্রয়ী হতে হবে।’