নীলফামারী প্রতিনিধি : মামলা জটিলতা নিরসন হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নির্বাচনে আর কোন বাঁধা নেই বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি। দুটি পক্ষ আদালতে মামলা করায় এতদিন নির্বাচন আটকে ছিলো যা নিরসন হওয়ায় আগামী নভেম্বরে মাসে নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর দুইটার দিকে নীলফামারী সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয় উদ্বোধন শেষে মশিউর রহমান ডিগ্রী কলেজ মাঠে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলিম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম মুক্তারুজ্জামান বক্তব্য দেন।

জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন নাহার।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ৫০ বছরের মধ্যে ৩০ বছরই ক্ষমতায় ছিলো অন্যরা আর আওয়ামী লীগ ২১ বছর। দেশে যা উন্নয়ন হয়েছে আওয়ামীলীগের সময়েই। আজকের উন্নয়ন এর স্বপ্ন দেখেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তারই কন্যা জননেত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করে চলেছেন অত্যন্ত চৌকস ভাবে। যদি আওয়ামীলীগের ধারা অব্যাহত থাকবো বাংলাদেশ অনেক আগেই বদলে যেতো।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা তিন হাজার টাকা ছিলো এখন ২০হাজার টাকা দেয়া হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কন্যার ইচ্ছায়, অসহায় মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি ঘর করে দেয়া হচ্ছে। শুধু মুক্তিযোদ্ধায় নন দেশের ৯ লাখ গৃহহীন মানুষকে থাকার আবাসস্থল করে দিচ্ছেন দেশরত্ন। ইতোমধ্যে দুইলাখ মানুষকে ঘর দেয়া হয়েছে বাকিদেরও কাজ চলমান।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রকাশিত জেলার মুক্তিযোদ্ধাগণের স্মৃতিকথা নিয়ে গ্রন্থ ‘রণাঙ্গণের বীর বাঙ্গালি’ এর মোড়ক উন্মোচন করেন মন্ত্রী।

এর আগে ১ কোটি ৮৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ব্যয়ে নীলফামারী সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের সরাসরি এবং ১ কোটি ৭৬ লাখ ২১ হাজার টাকা ব্যয়ে সৈয়দপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয় ভার্চুয়ালী উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।