আবুল কাশেম, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, আওয়ামীলীগের রাজনীতি হলো উন্নয়নের রাজনীতি আর বিএনপি‘র রাজনীতি হলো হত্যা, ক্যু ও প্রতিহিংসার রাজনীতি।

’৭৫ এর ১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডের মাস্টারমাইন্ড ছিলেন জিয়াউর রহমান।

অন্যদিকে, ২০০৪ সনের ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড ছিলেন তার ছেলে তারেক রহমান। ১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডের বিচার হলে জিয়াউর রহমানকে প্রাণ দিতে হতো না। কারণ, কোন হত্যাকান্ডের বিচার না হলে একটি হত্যাকান্ড আরেকটি হত্যাকান্ডের জন্ম দেয়।

বিএনপি মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও তারা প্রতিহিংসা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে বিশ্বাসী। যার ফলে দেশে সুস্থ্য গণতান্ত্রিক ধারা বার বার ব্যাহত হচ্ছে।

সোমবার সকাল ১১ টায় শাহজাদপুর রবীন্দ্র কাচারিবাড়ি অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সিরাজগঞ্জ-৬ শাহজাদপুর আসনের সদ্য প্রয়াত সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপনের শোকসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে ভার্চুয়েল বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, প্রয়াত সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপন ছিলেন একজন সফল রাজনীতিবিদ। তিনি ছিলেন জনবান্ধব ও কর্মীবান্ধব। তিনি ইউপি চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ৩ বারের সংসদ সদস্য ছিলেন। এতেই প্রমাণিত হয় এলাকায় তিনি কত জনপ্রিয় নেতা ছিলেন। তিনি বলেন, হাসিবুর রহমান স্বপন দলকে সুসংগঠিত করার পাশাপাশি এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। তাঁর অকাল মৃত্যুতে আমরা একজন নিবেদিতপ্রাণ রাজনীতিবিদকে হারিয়েছি এবং এলাকার অপুরণীয় ক্ষতি হয়েছে। যা সহজে পূরণ হওয়া সম্ভব নয়।

শোকসভা বাস্তবায়ন কমিটির আহŸায়ক সাবেক এমপি চয়ন ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শোকসভায় প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না ও সিরাজগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম।

সভায় প্রয়াত হাসিবুর রহমান স্বপনের বর্ণাঢ্য রাজনীতি ও কর্মময় জীবনের উপর স্মৃতিচারন মূলক বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাডভোকেট কেএম হোসেন আলী হাসান, সহসভাপতি আলহাজ্ব আবু ইউসুফ সূর্য্য, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার, শাহজাদপুর পৌরসভার মেয়র মনির আক্তার খান তরু লোদী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান শফি এবং মরহুমের জৈষ্ঠ্য কন্যা ডাঃ ফারজানা রহমান সম্পা। এ উপলক্ষে এদিন সকালে দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাচ ধারণ এবং বঙ্গবন্ধু ও প্রয়াত এমপির প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়।

প্রধান বক্তা এসএম কালাম হোসেন বলেন, আগামী ২ নভেম্বর এই আসনের উপ-নির্বাচন। অনেকেই দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দেবেন তারপক্ষে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বিদ্রোহী প্রার্থীদের দল থেকে আজীবন বহিঃষ্কার করা হবে। এমনকি তারা কোন নির্বাচনেই দলীয় মনোনয়ন পাবেন না।

শোকসভায় উপজেলা আওয়ামী লীগ, পৌর আওয়ামী লীগ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতা-কর্মী-সমর্থকসহ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি গত ২ সেপ্টেম্বর তুরস্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন।