তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ : আদালতের নির্দেশে ‘কারাগারে না পাঠিয়ে ফুলের সুগন্ধ বিলিয়ে’ ৭০ জন অভিযুক্ত শিশুকে সংশোধনের জন্য বাবা-মায়ের জিম্মায় দিয়ে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন সুনামগঞ্জের শিশু আদালতের বিচারক। লঘু অপরাধে ৫০টি মামলায় ৭০ জন শিশুকে সংশোধনের সুযোগ দিয়ে বাবা-মা’র জিম্মায় দিলেন এই বিচারক।

বুধবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জাকির হোসেন লঘু অপরাধে ৫০টি মামলায় ৭০ জন শিশুকে সংশোধনের সুযোগ দিয়ে বাবা-মা’র জিম্মায় দেন এই বিচারক। প্রতিদিন ০২টি ভাল কাজ করা এবং তা তাদেরকে আদালত কর্তৃক প্রদত্ত ডায়রীতে লিখে রাখা ও বছর শেষে ডায়রী আদালতে জমা দেওয়া, বাবা-মাসহ গুরুজনদের আদেশ নির্দেশ মেনে চলা এবং বাবা মায়ের সেবা যত্ন করা ও কাজে কর্মে তাদের সাহায্য করা, নিয়মিত ধর্মগ্রন্থ পাঠ করা এবং ধর্মকর্ম পালন করা, অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করা, মাদক থেকে দূরে থাকা, ভবিষ্যতে কোন অপরাধের সাথে নিজেকে না জড়ানো শর্তে এসব মামলা নিষ্পত্তি করে দেয়া হয়।

এসব শর্ত পালন হচ্ছে কিনা তা আগামী এক বছর একজন প্রবেশন কর্মকর্তা পর্যবেক্ষণ করবেন এবং প্রতি তিনমাস অন্তর অন্তর আদালতকে অবহিত করবেন। আর এসব রায়ে খুশি ও সন্তুষ্টি জানান অভিভাবকরাও।

এ ব্যাপারে শিশু আদালত এর অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর হাসান মাহবুব সাদী জানান, আদালতের এমন উদ্যোগ পরিবারের সান্নিধ্যে এসব কোমলমতি শিশুরা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠবে এবং সুন্দর জীবন গঠনের সুযোগ পাবে।’।