মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : মঠবাড়িয়া-পিরোজপুর সড়কের পৌর শহর জলাবদ্ধতা প্রবল ব্যস্ততম সড়কের পাশে ড্রেন নির্মাণ না করে কম ব্যস্ততম সড়কের পাশে ড্রেন নির্মাণ করা ও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করার অভিযোগ এনে ড্রেনেজ কাজ বন্ধ করে দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের ফায়ার স্টেশন সংলগ্ন সম্মখ সড়কে ড্রেনেজ চলমান কাজ পরিদর্শন শেষে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় এ কাজ বন্ধ করে দেয়ার ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে যানাযায়, পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ মঠবাড়িয়া পৌর শহরের পাথরঘাটা বাস স্টান্ড থেকে বহেরাতলা হয়ে খান সাহেব বাড়ি পর্যন্ত ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৪’শ মিটার ড্রেনেজ কাজ শুরু করেন। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স ওয়েষ্টার কনষ্ট্রাকশন লিমিটেড এন্ড হাসান টেকনো জে বি দীর্ঘ আড়াই বছর পূর্বে ওই ড্রেনেজ কাজ শুরু করলেও গত এক বছর আগে ওই কাজ শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু করোনা কালীন ও কাজে বিভিন্ন অনিয়মের কারনে দীর্ঘদিন ড্রেনেজ কাজ বন্ধ থাকে।

সম্প্র্রতি ওই অসমাপ্ত কাজ পৌর শহরের ব্যস্ততম ও গুরুত্বপূর্ন স্থানীয় সরকারী হাতেম আলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, উপজেলা পরিষদ, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, আইনজীবি সমূখ সড়কসহ দুরুত্বপূর্ণ সড়কে ড্রেনেজ কাজ না করে শহরের প্রাণ কেন্দ্র থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে ফায়ার স্টেশনের সম্মুখে কম গুরুত্বপূর্ন স্থানে ড্রেনেজ কাজ শুরু করেন।

ওই ড্রেনেজ নির্মাণ কাজে জমাট বাধা সিমেন্ট, নিম্নমানের ইট, পাথর, সিডিউলের বাইরে ৮ ইঞ্চি দূরত্বের পরিবর্তে ১৩ ইঞ্চি দূরত্বে রড বাধা স্থানীয়দের এমন অভিযোগে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান সিফাত, জেলা আ’লীগ সহ-সভাপতি আরিফ-উল-হক, মহিউদ্দিন আহমেদ মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আজীম উল হক, সাবেক যুবলীগ সভাপতি শাকিল আহমেদ নওরোজ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন। ড্রেনেজ কাজে অনিয়মের সত্যতা পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ওই ড্রেনেজ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ ড্রেনেজ কাজে বিভিন্ন অভিযোগে কাজ বন্ধের সতত্যা নিশ্চিত করে বলেন, ব্যস্ততম সড়কের পাশে ড্রেন নির্মাণ কাজ বন।ধ রেখে শহরের বাইরে কম গুরুত্বপূর্ন এলাকায় ড্রেনেজ কাজে নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স ওয়েষ্টার কনষ্ট্রাকশন লিমিটেড এন্ড হাসান টেকনো জে বি প্রজেক্ট ম্যানেজার মোঃ মাসুম জানান, শহরের প্রধান সড়কের পাশে জায়গা না পাওয়ায় ড্রেনের নির্মাণ কাজ শুরু করা যায়নি। তবে উপজেলা চেয়ারম্যানের আশ্বাসে শহরের দুরুত্বপূর্ন স্থানে দ্রুত কাজ শুরু করবো। তিনি আরও বলেন কাজে অনিয়ম এবং নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের বিষয়ে শ্রমিকদের অবহেলার কারনে কিছুটা সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। যা অচীরেই ঠিক করে দেয়া হবে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ পিরোজপুর এর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সুলতান আহমেদ জানান, ড্রেন নির্মানের কাজে নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার হয়ে থাকলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।